Sunday 25th of February 2018 12:09:57 PM
 
  Top News:
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে গণহারে দ্বিতীয়, তৃতীয় শ্রেণীর শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হচ্ছে----মো:নাসির  |  দীর্ঘমেয়াদি সম্পর্ক টিকিয়ে রাখার ৫টি সহজ উপায়  |  ৫ মিনিটের কম সময়ে এসিডিটির সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায়  |  Beat Diabetes: 4 Ways to Prevent Type 2 Diabetes  |  নারীদের সফলতার পেছনে রয়েছে এই ৩টি কারণ  |  পাঁচ বদভ্যাসে ক্ষুধা নষ্ট  |  এই খাবারগুলো খালি পেটে খাবেন না  |  রক্তচাপ বেড়ে যাওয়ার এ কারণটি জানেন কি?  |  কম খরচে বিদেশ ভ্রমণে এশিয়ার সেরা ৭  |  শুধু ছেলেরাই নয়, মেয়েদেরকেও দিতে হবে প্রেমের প্রস্তাব   |  উৎকৃষ্ট সব অভ্যাস যাতে মেলে সুখ  |  যে ৪টি কারণে মানুষ অজ্ঞান হয়ে যায়  |  মেঘদূত - জেবু নজরুল ইসলাম  |  3 Things Not To Say To Your Toddler  |   Men lose their minds speaking to pretty women  |  Lessons From a Marriage  |  চুইং গামে কী রয়েছে জানেন কি?  |  নিজেই তৈরি করে নিন দারুচিনি দিয়ে মাউথ ওয়াশ  |  সুস্থ থাকুন বৃষ্টি-বাদলায়  |  অপ্রত্যাশিত পরিস্থিতি সামলে উঠুন ৪টি উপায়ে  |  
 
 

বাংলাদেশে খুনিরা হত্যা করে পার পেয়ে যাচ্ছে

April 27, 2016, 7:33 PM, Hits: 219

 

এনজেবিডি নিউজ : বাংলাদেশে সাম্প্রতিক হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট বলেছেন, বাংলাদেশে খুনিরা হত্যা করে পার পেয়ে যাচ্ছে। গতকাল বুধবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের সঙ্গে বৈঠক শেষে অপেক্ষমাণ সাংবাদিকদের কাছে তিনি এ মন্তব্য করেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, বৈঠকে বাংলাদেশে সন্ত্রাস মোকাবিলায় সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন বার্নিকাট। পুলিশকে দক্ষতা বাড়তে প্রশিক্ষণের প্রস্তাবও সাদরে গ্রহণ করেছেন তিনি।

আর গতকাল সন্ধ্যায় যুক্তরাষ্ট্রের সিএনএন টেলিভিশনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বার্নিকাট বলেছেন, এখন যা ঘটছে তা বাংলাদেশের বৈশিষ্ট্যের সঙ্গে মেলে না। সাম্প্রতিক হামলাগুলো জনগণের মধ্যে ভীতির সঞ্চার করেছে। বাংলাদেশের জনগণ এসব হামলাকে সমর্থন করে না।

গতকাল সকাল ১১টায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে মন্ত্রীর দপ্তরে ওই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে প্রায় দেড় ঘণ্টা বৈঠক করেন বার্নিকাট। সেখান থেকে বেরিয়ে তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে যে ধরনের হত্যাকাণ্ডগুলো ঘটছে, তা পুলিশ বা সরকারের একার পক্ষে সামাল দেওয়া সম্ভব নয়, কারো পক্ষেই একা তা সম্ভব নয়। যৌথভাবে কাজ করতে হবে, যুক্তরাষ্ট্র কাজ করতে চাচ্ছে। বাংলাদেশে খুনিরা হত্যা করে পার পেয়ে যাচ্ছে।’ রাজধানীর কলাবাগানে খুনের শিকার জুলহাজ মান্নানের সঙ্গে তাঁর ভালো সম্পর্ক ছিল বলেও উল্লেখ করেন বার্নিকাট। তাঁর হত্যাকাণ্ডে তিনি খুবই দুঃখ পেয়েছেন বলে জানান। এ সময় তিনি খানিকটা আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন। 

বার্নিকাটের পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। তিনি বলেন ‘এটা তাঁর (বার্নিকাট) শিডিউল প্রোগ্রাম ছিল। অনেক আগে থেকে নোটিশ দিয়েছিলেন, ১০ দিন আগে। এর মধ্যে একটি দুঃখজনক ঘটনা ঘটেছে। আগের অ্যাম্বাসাডরের প্রটোকল অফিসার জুলহাজ ও তাঁর বন্ধু তনয়কে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে। তিনি (বার্নিকাট) অনেক ইমোশনের কথা বলেছেন। তাঁর সঙ্গে জুলহাজের হৃদ্যতা ছিল। একসঙ্গে অনেক দিন কাজ করেছেন। সে জন্য তিনি অনেক দুঃখ নিয়ে আসছেন, সেটা তিনি জানিয়েছেন।’ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশে এই দুই বছরে ব্লগার, রাজশাহীর প্রফেসরসহ কয়েকজনের হত্যাকাণ্ডে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বার্নিকাট। দীর্ঘ আলোচনার পর আমরাও বলেছি যে হত্যা শুধু বাংলদেশে হচ্ছে না, সারা পৃথিবীতেই হচ্ছে। এ ধরনের হত্যাকাণ্ড আপনার দেশেও হয়েছে। আপনার দেশে দুই বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। আমি বলেছি, আসুন, সন্ত্রাসীদের একসঙ্গে মোকাবিলা করি। অপনার কাছে যে ইনফরমেশন আছে আমাদের দেবেন। পুলিশের সক্ষমতা বাড়ানোর জন্য যে নতুন ইউনিটগুলো করছি সেগুলোর অফিসারদের ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থা করেন। এই প্রস্তাব সাদরে গ্রহণ করে তিনি বলছেন, তাঁরা সব ধরনের সহযোগিতা করবেন।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা এটাও জানিয়েছি, ৩১টি খুনের প্রতিটির সন্দেহভাজনদের চিহ্নিত করতে পেরেছি। বেশ কয়েকজনকে এরই মধ্যে আইনের আওতায় নিয়ে গেছি। এসব হত্যাকাণ্ড যারা ঘটায়, তারা কোনো দেশের জন্য নিরাপদ নয়। কাজেই আমরা চাই, আপনারা সহযোগিতা করেন।’

মন্ত্রী আরো বলেন, “বার্নিকাট আইএস প্রসঙ্গ তুললে আমরা বলেছি আইএস নেই, ‘হোম গ্রোন’ সন্ত্রাসী আছে। এমন কোনো পরিস্থিতি তৈরি হয়নি, যাতে বলা যেতে পারে যে বাংলাদেশে আইএসের ঘাঁটি আছে। পরে বার্নিকাট এ নিয়ে আর কোনো কথা বলেননি। তিনি হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে আমাদের অনেকগুলো কাগজ দিয়েছেন। আমরাও বাংলাদেশের যে দুজন আমেরিকায় খুন হয়েছে, তাদের কাগজ দিয়েছি।”

খুনিরা খুন করে পার পেয়ে যায়—বার্নিকাটের এ মন্তব্য একজন সংবাদিক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দৃষ্টিতে আনলে তিনি বলেন, ‘আমাদের পুলিশবাহিনীকে তিনি অ্যাপ্রিশিয়েট করে গেছেন। তাঁরা তাৎক্ষণিকভাবে তাঁদের যে কাজ তা করেছেন। পুলিশ ভালো কাজ করছে। অপরাধীকে ধরার জন্য একজন পুলিশ আহত হয়েছে, এটাও বলেছেন। ঘটনার পাঁচ মিনিটির মধ্যে পুলিশ গেছে। একজনকে ধরে ফেলার পরও আরেকজন তাকে কুপিয়ে নিয়ে চলে যায়। তখন পুলিশ ফায়ার ওপেন করেছিল। দ্বিতীয় ফায়ারটি ওপেন করতে পারেনি রাস্তায় অনেক লোক চলে আসায়। তিনি (বার্নিকাট) আবেগের কথা বলেছেন। তাঁর অভিযোগের সত্যতা নেই।’

আরেক প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘তথ্য আদান-প্রদানের জন্য ফোকাল পয়েন্ট হিসেবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিবের নাম বলে দিয়েছি। সার্বিক পরিস্থিতি নজরদারির জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে একটি সেল খোলা হবে, যা ২৪ ঘণ্টাই দায়িত্ব পালন করবে।’

গতকালের বৈঠকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান ছাড়াও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. মো. মোজাম্মেল হক খান, আইজিপি এ কে এম শহীদুল হক, অতিরিক্ত সচিব আবু হেনা  রহমাতুল মুনিম, ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়াসহ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

যা ঘটছে তা এ দেশের বৈশিষ্ট্যের সঙ্গে মেলে না : বাংলাদেশে সহিষ্ণুতা, বাক্স্বাধীনতার দীর্ঘদিনের ঐতিহ্য এবং ধর্মীয় ও সাংস্কৃতিক বৈচিত্র্যের কথা তুলে ধরে বার্নিকাট বলেছেন, এখন যা ঘটছে তা এ দেশের বৈশিষ্ট্যের সঙ্গে মেলে না। সাম্প্রতিক হামলাগুলো জনগণের মধ্যে ভীতির সঞ্চার করেছে। বাংলাদেশের জনগণ এসব হামলা সমর্থন করে না। গত সোমবার ঢাকায় যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের কর্মকর্তা জুলহাজ মান্নান হত্যাকাণ্ডের প্রেক্ষাপটে গতকাল সন্ধ্যায় সিএনএনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি এসব কথা বলেন। সাক্ষাৎকারটি সরাসরি সম্প্রচার করা হয়। সিএনএনের এক প্রশ্নের উত্তরে বার্নিকাট বলেন, সন্ত্রাসের বিরূদ্ধে লড়াইয়ে বাংলাদেশ অত্যন্ত জোরালো অংশীদার। তিনি সন্ত্রাস ও উগ্রবাদ মোকাবিলায় বাংলাদেশ সরকারের প্রচেষ্টার প্রশংসা করেন।

বাংলাদেশে ক্ষমতাসীন সরকার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এটি এমন একটি সরকার, যার অতীতে সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সফলভাবে লড়াই করার রেকর্ড আছে। এটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার, যিনি বলেছেন যে সন্ত্রাসের কোনো সীমানা ও ধর্ম নেই। বাংলাদেশ সরকার সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে কোনো ধরনের ছাড় দেয়নি।’

উগ্রবাদী গোষ্ঠীর হিটলিস্টে বাংলাদেশের বাইরে ইউরোপ, এমনকি যুক্তরাষ্ট্রের ব্যক্তিরাও আছেন—সিএনএনের পক্ষ থেকে এ বিষয়টি তুলে ধরা হলে বার্নিকাট বলেন, ‘এটি সম্পূর্ণ সঠিক। গত বছর বাংলাদেশে বেশ কয়েকটি হিটলিস্ট প্রকাশিত হয়েছে।’

রাষ্ট্রদূত বলেন, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বাংলাদেশকে শক্তিশালী হতে সহায়তা করতে তারা (যুক্তরাষ্ট্র) বাংলাদেশ সরকার, নাগরিক সমাজ ও গণমাধ্যমের সঙ্গে নিরলসভাবে কাজ করে চলেছে।

বর্তমান সমস্যা মোকাবিলায় যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের কাছে কী প্রত্যাশা করছে জানতে চাইলে বার্নিকাট বলেন, ‘আমরা আশা করি, সরকার এবং সবাই জোরালো ভাষায় এসব সহিংস কর্মকাণ্ডের নিন্দা জানাবে।’ হামলার পরপরই সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলোর দায় স্বীকারের যথার্থতার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, গত ১৪ মাসে তাঁরা এ ধরনের ৩৫টি হামলার ঘটনা পর্যবেক্ষণ করেছেন। সেগুলোর মধ্যে ২৩টির দায় স্বীকার করেছে আল-কায়েদার মতো সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলো।

জুলহাজ হত্যায় বার্নিকাট তাঁর নিজের প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে বলেন, তিনি (জুলহাজ) উন্নয়ন ও মানবাধিকার বিষয়ে কাজ করতেন। তাঁর অনেক গুণমুগ্ধ আছেন।

সাম্প্রতিক হত্যাগুলোর বিচার চায় অস্ট্রেলিয়া, ফ্রান্স ও সুইজারল্যান্ড : বাংলাদেশে সাম্প্রতিক হত্যাগুলোর বিচার চেয়ে গতকাল বুধবার বিবৃতি দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া, ফ্রান্স ও সুইজারল্যান্ড। এর আগে গত মঙ্গলবার জাতিসংঘ, ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ), যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, জার্মানি, ডেনমার্ক, নরওয়ে ও কানাডা বিবৃতি দিয়েছিল।