Friday 15th of December 2017 09:14:03 AM
 
  Top News:
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে গণহারে দ্বিতীয়, তৃতীয় শ্রেণীর শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হচ্ছে----মো:নাসির  |  দীর্ঘমেয়াদি সম্পর্ক টিকিয়ে রাখার ৫টি সহজ উপায়  |  ৫ মিনিটের কম সময়ে এসিডিটির সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায়  |  Beat Diabetes: 4 Ways to Prevent Type 2 Diabetes  |  নারীদের সফলতার পেছনে রয়েছে এই ৩টি কারণ  |  পাঁচ বদভ্যাসে ক্ষুধা নষ্ট  |  এই খাবারগুলো খালি পেটে খাবেন না  |  রক্তচাপ বেড়ে যাওয়ার এ কারণটি জানেন কি?  |  কম খরচে বিদেশ ভ্রমণে এশিয়ার সেরা ৭  |  শুধু ছেলেরাই নয়, মেয়েদেরকেও দিতে হবে প্রেমের প্রস্তাব   |  উৎকৃষ্ট সব অভ্যাস যাতে মেলে সুখ  |  যে ৪টি কারণে মানুষ অজ্ঞান হয়ে যায়  |  মেঘদূত - জেবু নজরুল ইসলাম  |  3 Things Not To Say To Your Toddler  |   Men lose their minds speaking to pretty women  |  Lessons From a Marriage  |  চুইং গামে কী রয়েছে জানেন কি?  |  নিজেই তৈরি করে নিন দারুচিনি দিয়ে মাউথ ওয়াশ  |  সুস্থ থাকুন বৃষ্টি-বাদলায়  |  অপ্রত্যাশিত পরিস্থিতি সামলে উঠুন ৪টি উপায়ে  |  
 
 

শিক্ষকের কাছে ক্ষমা চাইবেন না সেলিম ওসমান

May 26, 2016, 10:55 PM, Hits: 279

 
এনজেবিডি নিউজ : নারায়ণগঞ্জে পিয়ার লতিফ সাত্তার উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান। তবে তিনি এ ঘটনার জন্য ক্ষমা চাইবেন না। তিনি বলেন, ‘শ্যামল কান্তি ভক্তকে হিন্দু হিসেবে নয়, নাস্তিক হিসেবে শাস্তি দেয়া হয়েছে। জনতার রোষানল থেকে শ্যামল কান্তিকে রক্ষা করার জন্য এ ছাড়া কোনো উপায় ছিল না। এটা যদি আমার অপরাধ হয় এর জন্য আমি দুঃখিত ও লজ্জিত। কিন্তু ক্ষমা চাইব না।’

বৃহস্পতিবার নারায়ণগঞ্জ ক্লাব কমিউনিটি সেন্টারে মতবিনিময় সভা করেন জাতীয় পার্টির এই সংসদ সদস্য। সভায় নারায়ণগঞ্জ ওলামা পরিষদ, হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ, রাজনৈতিক, ব্যবসায়িক, শিক্ষক সমিতি, আইনজীবী সমিতির নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

শিক্ষক লাঞ্ছনার ঘটনায় শিক্ষক সংগঠনগুলো সেলিম ওসমানকে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানায়। তার সমালোচনা করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম। মতবিনিময় সভায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী নাসিমকে উদ্দেশ করে সেলিম ওসমান বলেন, ‘আপনার প্রতি নারায়ণগঞ্জবাসী কৃতজ্ঞ। আপনি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী থাকাকালে আমরা নারায়ণগঞ্জের ব্যবসায়ীরা চেম্বার থেকে সর্বপ্রথম বাংলাদেশ পুলিশের জন্য ২টি ভ্যান তুলে দিয়েছিলাম। এর আগে পুলিশের এমন ভ্যান ছিল না। নাসিম ভাই, আপনি কোনো ভুল করেননি। আপনি নারায়ণগঞ্জবাসীকে ডিজিটাল ফোন দিয়েছেন। ৪শ’ বছরের পুরাতন পতিতাপল্লী উচ্ছেদে সহায়তা করেছেন। আপনার কাছে আমি ক্ষমা চাই। আপনি আমাকে ক্ষমা চাইতে বলবেন না। আমি দোষ করেছি একজনকে কান ধরে বসাইছি, যে কিনা আল্লাহর কটাক্ষকারী।’

স্বাস্থ্যমন্ত্রীর উদ্দেশে সেলিম ওসমান আরও বলেন, ‘আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠা নারায়ণগঞ্জে আমাদের বায়তুল আমানে (পৈতৃক বাড়ি) আপনার দাওয়াত রইল। আসেন, প্রশ্ন করেন। আমি আপনাদের প্রশ্নের উত্তর দেব। কিন্তু কারও কাছে ক্ষমা চাইতে বইলেন না।’

সভায় সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের দিকে ইঙ্গিত করে সেলিম ওসমান বলেন, ‘একজন মন্ত্রী ট্রাফিক পুলিশের ভূমিকায় গিয়ে অটোরিকশার চালককে কান ধরে উঠবোস করান, কোনো প্রতিবাদ হয় না। ওহ, উনি মুসলমান, তাই কান ধরে উঠবোস করানো যায়, প্রতিবাদ হয় না?’

মুসলিমরা তার পক্ষে আছে দাবি করে সেলিম ওসমান বলেন, ‘আমার কাছে খবর আছে কাল শুক্রবার (আজ) বিভিন্ন মসজিদ থেকে বড় ধরনের বিক্ষোভের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। আমি তাদের বলেছি, রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ নয়। ইসলাম শান্তির ধর্ম। আপনারা মসজিদে মসজিদে দোয়া করেন।’ মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটির সমালোচনা করে সেলিম ওসমান বলেন, ‘এ পর্যন্ত তদন্ত কমিটির কোনো সদস্য আমার সঙ্গে কথা বলেনি। তদন্তের নামে কোমলমতি বাচ্চাদের টর্চার করা হচ্ছে। তদন্ত করতে করতে স্কুলের বাচ্চাগুলোকে মিথ্যাবাদী বানানো হচ্ছে।’ তিনি বলেন, ‘আমার প্রশ্ন হল, প্রধান শিক্ষক যে ছাত্রটিকে মারধর করলেন এটা কি আইনসম্মত? ওই শিক্ষককে কান ধরে উঠবোস করালে অপরাধ হয়, হাইকোর্টের রুল হয়। কিন্তু ক্লাসরুমের ভেতরে শিক্ষক ছাত্রকে নির্যাতন করলে তার কোনো বিচার হয় না, হাইকোর্টের অবমাননা হয় না।’

নিজে ‘রাজনীতির শিকার’ হয়েছেন দাবি করেই সেলিম ওসমান বলেন, ‘আমি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। হাইকোর্টে রুল এবং সরকারিভাবে আমার বিরুদ্ধে তদন্ত হচ্ছে। তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত আমি মরে গেলেও দেশত্যাগ করব না।’

নৈতিক কারণে সেলিম ওসমানকে সংসদে উপস্থিত না হওয়ার আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগ নেতাদের বক্তব্যের জবাবে সেলিম ওসমান বলেন, ‘আমাকে সংসদে আসতে নিষেধ করা হয়। আমার প্রশ্ন সংসদ কে চালান, স্পিকার না অন্য কেউ?’

২৫ মে সংবাদ সম্মেলন ডেকে তা বাতিল করা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের নির্দেশে আমি সংবাদ সম্মেলন বাতিল করেছি। চেয়ারম্যান বলেছেন, তোমার সঙ্গে আল্লাহ আছেন, আমরা আছি। পার্টির চেয়ারম্যান আমাকে আরও বলেছেন, ‘সেলিম তুমি তো ওলি হয়ে গেছ। তোমার জন্য কয়েক কোটি মানুষ মসজিদে মসজিদে দোয়া করছে।’ 

নারায়ণগঞ্জে পিয়ার লতিফ সাত্তার উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান। তবে তিনি এ ঘটনার জন্য ক্ষমা চাইবেন না। তিনি বলেন, ‘শ্যামল কান্তি ভক্তকে হিন্দু হিসেবে নয়, নাস্তিক হিসেবে শাস্তি দেয়া হয়েছে। জনতার রোষানল থেকে শ্যামল কান্তিকে রক্ষা করার জন্য এ ছাড়া কোনো উপায় ছিল না। এটা যদি আমার অপরাধ হয় এর জন্য আমি দুঃখিত ও লজ্জিত। কিন্তু ক্ষমা চাইব না।’

বৃহস্পতিবার নারায়ণগঞ্জ ক্লাব কমিউনিটি সেন্টারে মতবিনিময় সভা করেন জাতীয় পার্টির এই সংসদ সদস্য। সভায় নারায়ণগঞ্জ ওলামা পরিষদ, হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ, রাজনৈতিক, ব্যবসায়িক, শিক্ষক সমিতি, আইনজীবী সমিতির নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

শিক্ষক লাঞ্ছনার ঘটনায় শিক্ষক সংগঠনগুলো সেলিম ওসমানকে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানায়। তার সমালোচনা করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম। মতবিনিময় সভায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী নাসিমকে উদ্দেশ করে সেলিম ওসমান বলেন, ‘আপনার প্রতি নারায়ণগঞ্জবাসী কৃতজ্ঞ। আপনি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী থাকাকালে আমরা নারায়ণগঞ্জের ব্যবসায়ীরা চেম্বার থেকে সর্বপ্রথম বাংলাদেশ পুলিশের জন্য ২টি ভ্যান তুলে দিয়েছিলাম। এর আগে পুলিশের এমন ভ্যান ছিল না। নাসিম ভাই, আপনি কোনো ভুল করেননি। আপনি নারায়ণগঞ্জবাসীকে ডিজিটাল ফোন দিয়েছেন। ৪শ’ বছরের পুরাতন পতিতাপল্লী উচ্ছেদে সহায়তা করেছেন। আপনার কাছে আমি ক্ষমা চাই। আপনি আমাকে ক্ষমা চাইতে বলবেন না। আমি দোষ করেছি একজনকে কান ধরে বসাইছি, যে কিনা আল্লাহর কটাক্ষকারী।’

স্বাস্থ্যমন্ত্রীর উদ্দেশে সেলিম ওসমান আরও বলেন, ‘আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠা নারায়ণগঞ্জে আমাদের বায়তুল আমানে (পৈতৃক বাড়ি) আপনার দাওয়াত রইল। আসেন, প্রশ্ন করেন। আমি আপনাদের প্রশ্নের উত্তর দেব। কিন্তু কারও কাছে ক্ষমা চাইতে বইলেন না।’

সভায় সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের দিকে ইঙ্গিত করে সেলিম ওসমান বলেন, ‘একজন মন্ত্রী ট্রাফিক পুলিশের ভূমিকায় গিয়ে অটোরিকশার চালককে কান ধরে উঠবোস করান, কোনো প্রতিবাদ হয় না। ওহ, উনি মুসলমান, তাই কান ধরে উঠবোস করানো যায়, প্রতিবাদ হয় না?’

মুসলিমরা তার পক্ষে আছে দাবি করে সেলিম ওসমান বলেন, ‘আমার কাছে খবর আছে কাল শুক্রবার (আজ) বিভিন্ন মসজিদ থেকে বড় ধরনের বিক্ষোভের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। আমি তাদের বলেছি, রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ নয়। ইসলাম শান্তির ধর্ম। আপনারা মসজিদে মসজিদে দোয়া করেন।’ মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটির সমালোচনা করে সেলিম ওসমান বলেন, ‘এ পর্যন্ত তদন্ত কমিটির কোনো সদস্য আমার সঙ্গে কথা বলেনি। তদন্তের নামে কোমলমতি বাচ্চাদের টর্চার করা হচ্ছে। তদন্ত করতে করতে স্কুলের বাচ্চাগুলোকে মিথ্যাবাদী বানানো হচ্ছে।’ তিনি বলেন, ‘আমার প্রশ্ন হল, প্রধান শিক্ষক যে ছাত্রটিকে মারধর করলেন এটা কি আইনসম্মত? ওই শিক্ষককে কান ধরে উঠবোস করালে অপরাধ হয়, হাইকোর্টের রুল হয়। কিন্তু ক্লাসরুমের ভেতরে শিক্ষক ছাত্রকে নির্যাতন করলে তার কোনো বিচার হয় না, হাইকোর্টের অবমাননা হয় না।’

নিজে ‘রাজনীতির শিকার’ হয়েছেন দাবি করেই সেলিম ওসমান বলেন, ‘আমি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। হাইকোর্টে রুল এবং সরকারিভাবে আমার বিরুদ্ধে তদন্ত হচ্ছে। তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত আমি মরে গেলেও দেশত্যাগ করব না।’

নৈতিক কারণে সেলিম ওসমানকে সংসদে উপস্থিত না হওয়ার আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগ নেতাদের বক্তব্যের জবাবে সেলিম ওসমান বলেন, ‘আমাকে সংসদে আসতে নিষেধ করা হয়। আমার প্রশ্ন সংসদ কে চালান, স্পিকার না অন্য কেউ?’

২৫ মে সংবাদ সম্মেলন ডেকে তা বাতিল করা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের নির্দেশে আমি সংবাদ সম্মেলন বাতিল করেছি। চেয়ারম্যান বলেছেন, তোমার সঙ্গে আল্লাহ আছেন, আমরা আছি। পার্টির চেয়ারম্যান আমাকে আরও বলেছেন, ‘সেলিম তুমি তো ওলি হয়ে গেছ। তোমার জন্য কয়েক কোটি মানুষ মসজিদে মসজিদে দোয়া করছে।’ - See more at: http://www.jugantor.com/online/national/2016/05/27/14246/%E0%A6%B6%E0%A6%BF%E0%A6%95%E0%A7%8D%E0%A6%B7%E0%A6%95%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%95%E0%A6%BE%E0%A6%9B%E0%A7%87-%E0%A6%95%E0%A7%8D%E0%A6%B7%E0%A6%AE%E0%A6%BE-%E0%A6%9A%E0%A6%BE%E0%A6%87%E0%A6%AC%E0%A7%87%E0%A6%A8-%E0%A6%A8%E0%A6%BE-%E0%A6%B8%E0%A7%87%E0%A6%B2%E0%A6%BF%E0%A6%AE-%E0%A6%93%E0%A6%B8%E0%A6%AE%E0%A6%BE%E0%A6%A8#sthash.Ma6DliaG.dpuf