Saturday 16th of December 2017 07:34:40 PM
 
  Top News:
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে গণহারে দ্বিতীয়, তৃতীয় শ্রেণীর শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হচ্ছে----মো:নাসির  |  দীর্ঘমেয়াদি সম্পর্ক টিকিয়ে রাখার ৫টি সহজ উপায়  |  ৫ মিনিটের কম সময়ে এসিডিটির সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায়  |  Beat Diabetes: 4 Ways to Prevent Type 2 Diabetes  |  নারীদের সফলতার পেছনে রয়েছে এই ৩টি কারণ  |  পাঁচ বদভ্যাসে ক্ষুধা নষ্ট  |  এই খাবারগুলো খালি পেটে খাবেন না  |  রক্তচাপ বেড়ে যাওয়ার এ কারণটি জানেন কি?  |  কম খরচে বিদেশ ভ্রমণে এশিয়ার সেরা ৭  |  শুধু ছেলেরাই নয়, মেয়েদেরকেও দিতে হবে প্রেমের প্রস্তাব   |  উৎকৃষ্ট সব অভ্যাস যাতে মেলে সুখ  |  যে ৪টি কারণে মানুষ অজ্ঞান হয়ে যায়  |  মেঘদূত - জেবু নজরুল ইসলাম  |  3 Things Not To Say To Your Toddler  |   Men lose their minds speaking to pretty women  |  Lessons From a Marriage  |  চুইং গামে কী রয়েছে জানেন কি?  |  নিজেই তৈরি করে নিন দারুচিনি দিয়ে মাউথ ওয়াশ  |  সুস্থ থাকুন বৃষ্টি-বাদলায়  |  অপ্রত্যাশিত পরিস্থিতি সামলে উঠুন ৪টি উপায়ে  |  
 
 

সঙ্গী যখন সমালোচনার পাত্র

May 31, 2016, 11:10 PM, Hits: 355

 

এনজেবিডি নিউজ : নারী ও পুরুষের চিন্তার মাঝে সবসময়েই কিছু ভিন্নতা লক্ষ্য করা যায়। এটা কেবল বর্তমান সময়েই নয়, বরং সবসময়ের জন্যেই সত্যি। আর এই ভিন্নতার দরুন অনেক সময় প্রচন্ড আবেগ আর ভালোবাসাকে বুকে আগলে রেখেও দুজন মানুষ পুরোপুরিভাবে অচেনা হয়ে যায় একে অন্যের। চলে যায় একে অপরের থেকে অনেকটা দূরে। তেমন কিছু কি ঘটে চলেছে আপনার সাথেও? তাহলে দেরী না করে নীচের ধাপগুলোকে অনুসরণ করুন আর সঙ্গীকে ভালোভাবে বুঝে তাকে কোনরকম ঝামেলা ছাড়াই জানান তার সম্পর্কে করা আপনার সমালোচনাগুলো।

১. নিজেকে মূল্যায়ন করুন

অন্যকে দোষী করার আগে, অন্যের দিকে সমালোচনার আঙ্গুল তোলার আগে সবসময়ই উচিত আয়নায় নিজেকে আরেকবার দেখা। তাই প্রথমে সেটাই করুন। আপনার সঙ্গীটি নাহয় দোষী। কিন্তু আপনার দোষ কি তাতে একটুও নেই? সেটা কি আপনার সঙ্গীর চাইতে খানিকটা বেশিই? নিজের সম্পর্কে, নিজের করে আসা কার্যক্রম সম্পর্কে সচেতন থাকুন আর কোন দোষ করে থাকলে সেটা মেনে নেওয়ার মানসিকতা তৈরি করুন।

২. সঠিক সময় নির্বাচন করুন

মানুষ সবসময় সব কথা বলার মন-মানসিকতায় থাকেনা। আর তাই দিনের সেই সময়টাকে খুঁজে বের করার চেষ্টা করুন যখন আপনিও কথা বলতে চাইবেন আর আপনার সঙ্গীটিও আপনার কথাগুলো শুনতে চাইবেন। সমালোচনা, সেটা যত গঠনমূলকই হোক না কেন, সেটা নিশ্চয় সারাদিন কাজের পর বাসায় প্রথম পা রেখেই শুনতে ইচ্ছে করবে না আপনার? তাই নিজেকে আর নিজের সঙ্গীটিকে সময় দিন। নিজেদেরকে প্রস্তুত করুন। প্রয়োজনে আগে থেকেই আপনি যে তাকে কিছু বলতে চান সেটা জানিয়ে দিন।

৩. কোন সিদ্ধান্তে চলে যাবেন না

হ্যাঁ, আপনার সঙ্গীর কার্যবিধি নিয়ে তার সাথে কথা আপনি বলতেই পারেন, তাকে সমালোচনা করতেই পারেন। তবে তাই বলে নিজের যেটা ঠিক মনে হচ্ছে সেটাকেই যেন প্রাধান্য দেবেন না। বরং, সমস্যার সম্ভাব্য কারণগুলো ভাবার চেষ্টা করুন। কখনোই সন্দেহের জোরে কোন সিদ্ধান্তে চলে যাবেন না। এতে করে সমস্যা আরো বাড়বে বই কমবে না।

৪. নিজেকে নিয়ে পড়ে থাকবেন না

রাগের সময়গুলোতে মানুষ নিজের ওপর নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে অপর পক্ষকে যেটা খুশি সেটা বলে আঘাত দেওয়ার চেষ্টা করে থাকে। তবে তাই বলে কেবল নিজেকেই ঠিক বলে অন্যজনকে ব্যক্তিগতভাবে আঘাত করতে যাবেন না। সমালোচনা করুন। তবে সেই সাথে আপনার সঙ্গী প্রবর যেসব সঠিক কাজ করেছেন সেগুলোর তালিকাটাও তাকে শোনান। তাকে বোঝান যে তার সমস্ত আবেগের সাথে আপনার আবেগও জড়িয়ে আছে। এতে করে কেবল নিজের কথা না ভেবে আপনার কথাও ভাববে সে।

৫. তার কথা শুনুন

শুধু কি নিজে কথা বললেই হবে? অবশ্যই না! আপনি যেমন তার সমালোচনা করছেন, আপনার সঙ্গীর কাছেও তো আপনার জন্যে সমালোচনা থাকতে পারে। আর তাই কেবল নিজে না বলে গিয়ে সঙ্গীকেও সময় দিন বলার,