Sunday 25th of February 2018 08:22:02 AM
 
  Top News:
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে গণহারে দ্বিতীয়, তৃতীয় শ্রেণীর শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হচ্ছে----মো:নাসির  |  দীর্ঘমেয়াদি সম্পর্ক টিকিয়ে রাখার ৫টি সহজ উপায়  |  ৫ মিনিটের কম সময়ে এসিডিটির সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায়  |  Beat Diabetes: 4 Ways to Prevent Type 2 Diabetes  |  নারীদের সফলতার পেছনে রয়েছে এই ৩টি কারণ  |  পাঁচ বদভ্যাসে ক্ষুধা নষ্ট  |  এই খাবারগুলো খালি পেটে খাবেন না  |  রক্তচাপ বেড়ে যাওয়ার এ কারণটি জানেন কি?  |  কম খরচে বিদেশ ভ্রমণে এশিয়ার সেরা ৭  |  শুধু ছেলেরাই নয়, মেয়েদেরকেও দিতে হবে প্রেমের প্রস্তাব   |  উৎকৃষ্ট সব অভ্যাস যাতে মেলে সুখ  |  যে ৪টি কারণে মানুষ অজ্ঞান হয়ে যায়  |  মেঘদূত - জেবু নজরুল ইসলাম  |  3 Things Not To Say To Your Toddler  |   Men lose their minds speaking to pretty women  |  Lessons From a Marriage  |  চুইং গামে কী রয়েছে জানেন কি?  |  নিজেই তৈরি করে নিন দারুচিনি দিয়ে মাউথ ওয়াশ  |  সুস্থ থাকুন বৃষ্টি-বাদলায়  |  অপ্রত্যাশিত পরিস্থিতি সামলে উঠুন ৪টি উপায়ে  |  
 
 

লেখকদের কলাম

Displaying 91-100 of 430 results.

আদালতে ইতিহাস চর্চ্চা = সিরাজী এম আর মোস্তাক

আদালতে ইতিহাস চর্চ্চা = সিরাজী এম আর মোস্তাক

আদালত হচ্ছে আইনের চর্চ্চা কেন্দ্র, ইতিহাসের নয়। গত ০২ ফেব্রুয়ারী, ২০১৬ তারিখে বাংলাদেশে অবস্থিত আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল মুক্তিযুদ্ধ ও শহীদের ইতিহাস নিয়ে ব্যাপক চর্চ্চা করেছে। ত্রিশ লাখ শহীদ ও দুই লাখ সম্ভ্রমহারা মা-বোন প্রসঙ্গে একটি আংশিক রায় দিয়েছে। রায়ে উল্লেখ হয়েছে, “মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লাখ মানুষের শহীদ হওয়া ও লাখ লাখ নারীর সম্ভ্রম বিসর্জন প্রতিষ্ঠিত ইতিহাস। এই ইতিহাস মুক্তিযুদ্ধের পবিত্র আবেগ ও গৌরবের মধ্যে মিশে আছে।” মুক্তিযুদ্ধে ত্রিশ লাখ শহীদের সংখ্যা সঠিক হলে বাংলাদেশে প্রচলিত মাত্র দুই লাখ মুক্তিযোদ্ধা তালিকা কেন অবৈধ নয়, সে প্রসঙ্গে আদালত কোনো...

শেকড়সন্ধানী একজন প্রকাশক = ড. মাহবুবুল হক

শেকড়সন্ধানী একজন প্রকাশক = ড. মাহবুবুল হক

বাংলাবাজারের বেশ কয়েকজন প্রকাশকের সঙ্গে আমার ব্যক্তিগত পরিচয় রয়েছে। এদের মধ্যে ব্যতিক্রমধর্মী একজন প্রকাশক হলেন সিকদার আবুল বাশার।
বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলার মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস প্রণয়ন ও প্রকাশে তিনি আগ্রহী ও নিয়োজিত। এ ধরনের একটি গ্রন্থে একজন রাজাকারের নাম মুদ্রিত হওয়ার জন্যে তাকে নিয়মিত হাজিরা দিতে হয়েছে জামালপুরের আদালতে। এ জন্যে কেবল তার শ্রম ও অর্থই ব্যয় হয় নি, বিড়ম্বনার শিকারও হতে হয়েছে।
সিকদার আবুল বাশার ইতিহাসমনস্ক একজন ব্যতিক্রমধর্মী প্রকাশক। ইতিহাস সম্পর্কে তার ধারণা ও দৃষ্টিভঙ্গি যথেষ্ট পরিষ্কার। তিনি যেসব ইতিহাসগ্রন্থ রচনা ও প্রকাশ করেছেন...

অমর একুশে বইমেলা ২০১৬ : গতিধারার নতুন বই

অমর একুশে বইমেলা ২০১৬ : গতিধারার নতুন বই(সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বইমেলায় স্টল ২৪১। ২৪২। ২৪৩)

ক্রম  বইয়ের নাম  লেখক  বিষয়  মূল্য
০১.  ইতিহাস ও স্থাপত্য ঐতিহ্যের নগর ঢাকা  মো. রেজাউল করিম  স্থাপত্যের ইতিহাস  ৬০০.০০
০২.  বাংলাদেশের দুর্যোগ  মো. রেজাউল করিম  গবেষণা  ৫০০.০০
০৩.  সিরাজগঞ্জ জেলার ইতিহাস ও ঐতিহ্য  আখতার উদ্দিন মানিক  ইতিহাস  ১০০০.০০
০৪.  বাংলার স্থাননাম  রাজিব আহমেদ সম্পাদিত  ইতিহাস  ৬০০.০০
০৫.  মারফতি ও মুর্শিদি গান  ওয়াকিল আহমদ  গান  ১৫০.০০
০৬.  বাংলা লোকসাহিত্য : ছড়া  ওয়াকিল আহমদ  ছড়া প্রবন্ধ  ৪০০.০০
০৭.  বাংলার  পীর  সাহিত্য ও সংস্কৃতি  ওয়াকিল...

জহির রায়হানের রাজাকারি পরিণতি কেন? = সিরাজী এম আর মোস্তাক

জহির রায়হানের রাজাকারি পরিণতি কেন? =  সিরাজী এম আর মোস্তাক

৩১ জানুয়ারী, ১৯৭২ পাক হানাদারমুক্ত সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশ থেকে অসংখ্য কৃতিত্বের অধিকারী ক্ষণজন্মা লেখক জহির রায়হান চিরতরে হারিয়ে গেছেন। তিনি ছিলেন একইসাথে অভিনেতা, চলচ্চিত্র পরিচালক, ঔপন্যাসিক, গল্পকার, লেখক, সাংবাদিক ও মুক্তিযুদ্ধে মুজিবনগর সরকারের সংগ্রামী প্রতিনিধি বিশেষ। তার অমর কৃতিত্বসমূহ আজও তাকে স্মরণ করতে বাধ্য করে। তার শেষ পরিণতিটা ছিল একেবারেই অকল্পনীয়। প্রত্যক্ষ দৃশ্য ও সমসাময়িক ঘটনা বিশ্লেষণে স্পষ্ট হয় যে, তিনি রাজাকারি পরিণতি ভোগ করেছেন।
এখানে ১৯৭১ সালের ১৯ ডিসেম্বরে রাজাকার হত্যাকান্ডের একটি প্রত্যক্ষ দৃশ্য দেয়া হয়েছে। এটি ১৯৭১ সালে বিজয়ের...

বেকারদের ওপর হামলা কেন? - সিরাজী এম আর মোস্তাক

  বেকারদের ওপর হামলা কেন? -  সিরাজী এম আর মোস্তাক

ঘরে ঘরে চাকরি দেবার প্রতিশ্রুতিতে ক্ষমতায় এসে অসহায়, ভুখা-নাঙ্গা ও সর্বোচ্চ শিক্ষিত বেকার যুবকদের আন্দোলনে সাড়া না দিয়ে বরং পুলিশ নামক ভয়ানক অস্ত্র দ্বারা হামলা করা কতোটা অমানবিক, সরকার সে বোধটুকু হারিয়ে ফেলেছে। সরকার যে আচরণ করেছে, তা সম্পুর্ণরূপে মানবতাবিরোধী অপরাধের শামিল হয়েছে। বহু নিরীহ ছাত্রকে আটক করেছে, নির্মম আঘাতসহ জঘন্যভাবে লান্থিত করেছে। অথচ বেকার যুবকদের দাবি আহামরি কিছু নয়, চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা মাত্র ৩৫ বছর করা। এ দাবি সম্পুর্ণ যৌক্তিক ও বিধিসম্মত।
মুক্তিযুদ্ধে ত্রিশ লাখ শহীদদেরকে রাজাকার সাব্যস্ত করে তথাকথিত দুই লাখ ভারতীয় রাজাকারদেরকে...

উন্নয়নের বুলি বনাম ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ - মুহাম্মদ আবদুল কাহহার

উন্নয়নের বুলি বনাম ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ -  মুহাম্মদ আবদুল কাহহার

গত ২৩ জানুয়ারি দৈনিক ইনকিলাবের শেষ পাতায় পাশাপাশি দুটি সংবাদ ছাপা হয়েছিল। যার একটির শিরোনাম ছিল ‘দেশে চার জনে একজন ক্ষুধার্ত’ এবং অন্যটি ‘২০৩০ সালের মধ্যে দেশ ক্ষুধামুক্ত হবে’। সংবাদ দুটির একটি ইতিবাচক অন্যটি নেতিবাচক। কৃষি অর্থনীতি সমিতির ১৫তম জাতীয় সম্মেলন ও সেমিনারে দেয়া তথ্য থেকে জানা গেছে ‘দেশে প্রতি চারজনের মধ্যে একজন মানুষ ক্ষুধার্ত’। গত ১০ বছরে দেশে ক্ষুধার্ত মানুষের অবস্থা সূচক ৩ দশমিক ৭-এ নেমেছে বলে জানিয়েছেন কৃষি অর্থনীতিবিদরা। মানুষকে পুষ্টি ও মানসম্মত খাদ্য দেয়া যাচ্ছেনা বলে শিকার করেছেন পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। তিনি আরো বলেন, বিশ্বে...

একের সমন অন্যের বিরূদ্ধে = সিরাজী এম আর মোস্তাক

একের সমন অন্যের বিরূদ্ধে =  সিরাজী এম আর মোস্তাক

২৫ জানুয়ারী, ২০১৬ তারিখে বেগম জিয়ার বিরূদ্ধে মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সংখ্যা নিয়ে বিতর্কের অভিযোগে আদালত কর্তৃক যে সমন জারি হয়েছে, তার মূল অভিযুক্ত তিনি নন। এ সমন পুরোপুরি উদোর পিন্ডি বুদোর ঘাড়ে চেপেছে। কারণ, বেগম জিয়া মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সংখ্যা প্রসঙ্গে বক্তব্য দিয়েছিলেন ২১ ডিসেম্বর, ২০১৫ তারিখে। প্রকৃত বিতর্ক শুরু হয়েছিল এর আগেই। ১৬ই ডিসেম্বরে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী প্রদত্ত বাণী থেকেই বিতর্কের সূচণা হয়েছিল। তিনি বাণীতে উল্লেখ করেন, “স্মরণ করছি জাতীয় চার নেতা, ত্রিশ লাখ শহীদ এবং দুই লাখ মা-বোনকে, যাঁদের অসামান্য আত্মত্যাগের বিনিময়ে আমরা...

প্রথমবারের মতো জাতীয় খেলা কাবাডির = বিশ্বকাপ আয়োজক দেশ হোক বাংলাদেশ

প্রথমবারের মতো জাতীয় খেলা কাবাডির = বিশ্বকাপ আয়োজক দেশ হোক বাংলাদেশ

সুজলা, সুফলা, শস্য-শ্যামলা, ষড়ঋতুর নয়নাভিরাম একটি দেশ, আমাদের বাংলাদেশ। নদীমাতৃক এই দেশের অধিকাংশ মানুষ বসবাস করে গ্রামে। প্রাচীনকাল থেকেই বাঙালি কৃষিভিত্তিক অর্থনীতির উপর সম্পূর্ণ নির্ভরশীল এবং এই অর্থনীতির সম্পূর্ণ কোনো বিকল্প ব্যবস্থা অদ্যাবধি গড়ে উঠে নাই। এই জন্য কৃষিভিত্তিক অর্থনীতির গুরুত্ব এখানে আবহমানকাল থেকেই অত্যন্ত বেশী। এদেশের সুখ-দুঃখ, হাসি-কান্না, আনন্দ-বেদনায় রচিত যে মহাকাব্য গ্রামীণ জীবনকে কেন্দ্র করেই আবর্তিত রয়েছে চিরকাল। আজও বাংলায় ধর্ম, বর্ণ, গোত্র নির্বিশেষে আমাদের সকলের চেহারায়, চালচলনে ও স্বভাবে গ্রাম্য জীবনের ছাপ ও প্রভাব সর্বত্র...

আশাবাদের দেশে তর্ক-বিতর্ক - ড. মীজানুর রহমান

 আশাবাদের দেশে তর্ক-বিতর্ক - ড. মীজানুর রহমান

উন্নয়ন আগে, না গণতন্ত্র আগে? টেকসই উন্নয়নের জন্য গণতন্ত্র অপরিহার্য কিনা এ বিতর্ক অনেক পুরনো। তবে কম রাজনীতি উন্নয়নের সহায়ক এটা আমাদের ইদানীং কালের বাংলাদেশের অভিজ্ঞতা দিয়েই দেখেছি। এর আগে, ‘কম রাজনীতি’ শব্দ যুগলকে ‘কম গণতন্ত্র’ বলে বিভ্রাট সৃষ্টি হয়েছিল। আমাদের মতো গণতন্ত্রের দেশে গণতন্ত্রের মাপকাঠি দুটি: একটি ‘রাজপথের কর্মসূচি’ অপরটি ‘নির্বাচন’। রাজপথের অহিংসাত্মক কর্মসূচি যেমন একটি মহাসমাবেশ বা বড় র‌্যালি কিভাবে দেশের অর্থনীতিকে এক-দুই দিনের জন্য থমকে দেয় সে অভিজ্ঞতা কম বেশি সবারই আছে। গুলিস্তান বা পল্টন একটি জনসভা পুরো রাজধানীর অর্থনৈতিক অগ্রযাত্রাকে...

জুমার খুতবাহ নিয়ন্ত্রণ কল্যাণকর নয় - মুহাম্মদ আবদুল কাহহার

জুমার খুতবাহ নিয়ন্ত্রণ কল্যাণকর নয় - মুহাম্মদ আবদুল কাহহার

এনজেবিডি নিউজ : শুক্রবার সপ্তাহের শ্রেষ্ঠ দিন। এ দিনে ছোট-বড় সবাই জুমার সালাতে উপস্থিত হতে চেষ্টা করে। যে ব্যক্তি প্রত্যহ পাঁচ ওয়াক্ত সালাত আদায় করেনা বা মাঝে মাঝে সালাত আদায় করেন তিনিও জুমার সালাত আদায় করতে মাসজিদে যান। বিশেষ করে প্রথম আজানের পরপরই মুসুল্লিরা ইমাম ও খতিবের আলোচনা শোনার জন্যই উপস্থিত হন। তবে কেউ কেউ ব্যতিক্রমও আছেন, ইমাম বা খতিব কী আলোচনা করলেন সেটা নিয়ে তাদের আগ্রহ তেমন দেখা যায় না। তবে অধিকাংশ লোকের অভ্যাস হলো যে মাসজিদে আলোচনা ভালো হয়, সে মাসজিদে...