Sunday 19th of August 2018 03:37:32 AM
 
  Top News:
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে গণহারে দ্বিতীয়, তৃতীয় শ্রেণীর শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হচ্ছে----মো:নাসির  |  দীর্ঘমেয়াদি সম্পর্ক টিকিয়ে রাখার ৫টি সহজ উপায়  |  ৫ মিনিটের কম সময়ে এসিডিটির সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায়  |  Beat Diabetes: 4 Ways to Prevent Type 2 Diabetes  |  নারীদের সফলতার পেছনে রয়েছে এই ৩টি কারণ  |  পাঁচ বদভ্যাসে ক্ষুধা নষ্ট  |  এই খাবারগুলো খালি পেটে খাবেন না  |  রক্তচাপ বেড়ে যাওয়ার এ কারণটি জানেন কি?  |  কম খরচে বিদেশ ভ্রমণে এশিয়ার সেরা ৭  |  শুধু ছেলেরাই নয়, মেয়েদেরকেও দিতে হবে প্রেমের প্রস্তাব   |  উৎকৃষ্ট সব অভ্যাস যাতে মেলে সুখ  |  যে ৪টি কারণে মানুষ অজ্ঞান হয়ে যায়  |  মেঘদূত - জেবু নজরুল ইসলাম  |  3 Things Not To Say To Your Toddler  |   Men lose their minds speaking to pretty women  |  Lessons From a Marriage  |  চুইং গামে কী রয়েছে জানেন কি?  |  নিজেই তৈরি করে নিন দারুচিনি দিয়ে মাউথ ওয়াশ  |  সুস্থ থাকুন বৃষ্টি-বাদলায়  |  অপ্রত্যাশিত পরিস্থিতি সামলে উঠুন ৪টি উপায়ে  |  
 
 

সাহিত্য

Displaying 71-80 of 473 results.

অবিকল আমারি মতো - জেবু নজরুল ইসলাম

অবিকল আমারি মতো - জেবু নজরুল ইসলাম

তুমি যে পথ দিয়ে হেঁটে চলে যাও
তোমার কমল কোমল পায়ের ছোঁয়ায়
কচিঘাসে ঢাকা সে পথের লতাগুল্ম
আনন্দে হয় আত্মহারা,
ধুলিকণা যা আছে  হয়ে যায় সোনা সোনা।
ইট কঙ্কর নুড়ি কিংবা পাথর
নিজেরাই পদ্ম হয়ে ফুটে উঠে তোমার হেঁটে যাওয়া পথে
সাদা সাদা মেঘমালা দুরন্ত গতিতে ছুটে আসে
তোমার মাথার উপর,
যেনো খররৌদ্রতাপ ছুঁয়ে যেতে না পারে তোমায়।
অবিরাম বয়ে চলে মৃদুমন্দ শীতল বাতাস
বিন্দু বিন্দু শিশিরকণা যেন বের হতে না পারে
তোমার সোনার অঙ্গ চুয়ে চুয়ে,
গাছেরা শাখা বিস্তার করে ছায়া দেয়
সর্পের মতো তুলে ফণা।
তুমি যখন রাজহংসীর মতো দুলে দুলে হেঁটে যাও
ফুলেরা ডালে ডালে নেচে উঠে,
অরণ্যের ...

বিমুগ্ধ - জেবু নজরুল ইসলাম

বিমুগ্ধ - জেবু নজরুল ইসলাম

বুকের গভীরে ভালবাসার যে বীজ
তুমি বুনেছিলে,
সেই ভালবাসা আজ মহিরুহের মতো
হয়েছে প্রকান্ড,
করে বিস্তার শাখা প্রশাখা
গিয়েছে শিরা উপশিরা আর ধমনীর গহিনে।
তোমার ভালবাসায় এখনো বিমুগ্ধ এখনো বিভোর।
প্রসুপ্ত মনকে ছুঁয়েছিলে একদিন
তোমার ভালবাসার সুরভী দিয়ে,
আজও ভালো লাগে নির্ঝরের বিরামহীন শব্দ,
সমুদ্রের উথাল পাতাল ঢেউ,
বিজন দুপুরে ডাহুকের ডাক,
ভালো লাগে নীলায়িত আকাশ।
ভালবাসার বীজ তুমি বুনেছিলে বলেইতো
রাতের তারার মতো চোখ মেলে
তাকিয়ে থাকি,
তোমার মাঝে মিশে যাই সফেনের মতো।
বুকের প্রতিটি তপ্ত নিঃশ্বাসে
মনে পড়ে শুধু মনে পড়ে তোমাকে,
নিশীথের অন্ধকারে নিঃসঙ্গ...

দহনের উম্মাদনা - জেবু নজরুল ইসলাম

দহনের উম্মাদনা - জেবু নজরুল ইসলাম

তোমার হাতের একটি শীতল ছোঁয়া পেতে
তীর্থের কাকের মতো বসে আছি উম্মুখ হয়ে,
ঝুম বৃষ্টি বা সন্ধ্যার এক পশলা বৃষ্টিপাত
যেমন শীতল করে তাপ-দগ্ধ পরিবেশ কিংবা
প্রকৃতির শ্বাসরুদ্ধকর উত্তাপ,
তেমনি তোমার মৃণাল হাতের একটি স্পর্শ
থামিয়ে দিতে পারে আমার দহনের উম্মাদনা,
প্রশান্তিতে ভরে দিতে পারে বুকের করিডোর নিমিষেই।
বৈশাখী তীব্র দহনে বিধ্বস্ত মন
তোমাকে খোঁজে প্রকৃতির মঝে সারাক্ষণ।
রৌদ্রোজ্জ্বল অমল প্রত্যূষে প্রউদ্ভিন্ন বনোফুলের
মৌ মৌ সুরভী হৃদয় অধর যখন ছুঁয়ে ছুঁয়ে যায়,
তোমাকে কাছে পেতে খুব ইচেছে করে,
প্রভাতের নৈসর্গিক সৌন্দর্যে বিমোহিত মন
কখনো হারিয়ে যায়...

অমিয় দিনগুলো - জেবু নজরুল ইসলাম

অমিয় দিনগুলো -  জেবু নজরুল ইসলাম

মনে পড়ে কেবলি ভালবাসার স্বপ্নেঘেরা
অমিয় দিনগুলো, স্মৃতিরা আমাকে
প্রচ্ছন্ন রাখে রাত্রি-দিন ভোরের
কুয়াশার মতো।
মনে পড়ে......
মধুময় সেই মুহূর্তগুলো,
শীতের সকালে মিষ্টি রোদের উষ্ণতা নিতে
দুজন দুজনার হৃদয়ে হারিয়ে যাওয়া,
সেই মায়াবী সন্ধ্যায় হাতে হাত,
চোখে চোখ রেখে ডুবে যাওয়া অনুভবের
হিমেল সাগরে,
কাটিয়েছি ভালবাসার একান্ত সুরভিত
মুহূর্তগুলো সেইখানে।
মনে পড়ে তোমার উষ্ণ ছোঁয়ায়
জাগতো শিহরণ,
সজীব হতো ম্রিয়মাণ অন্তর,
সহস্র নীল-কমল ফুটতো এক একটি করে
বুকের অলিন্দে আমার।
কোকিল ডাকা ভোর, ঘুঘু ডাকা দুপুর,
অথবা সন্ধ্যার আধো আলো আধো ছায়াতে
দুজন কখনো থাকতাম...

ভেতরে রক্তাক্ত - জেবু নজরুল ইসলাম

ভেতরে রক্তাক্ত - জেবু নজরুল ইসলাম

এত পরিচিত এত চেনা মুখ
হৃদয় উদ্বেলিত একটু ছোঁয়া পেতে,
তবুও সুদূর থেকে যায় চিরকাল
দেয় না ধরা ঠিক তোমার মতো।
তোমাকে মনে হয় শুধু কল্পনা
তুমি কেবলি অলিক স্বপ্ন,
তোমাকে কত দেখি, চিনি তোমার
আদ্যোপান্ত, তথাপিও কেনো বুঝিনা তোমায়,
মাঝে মাঝে মনে হয় একেবারেই
চিনিনা তোমাকে।
কেনো জানি মনে হয় তুমি দুর্বোধ্য কবিতা
তিমিরাবগুন্ঠিত রজনী, উত্তপ্তমরু, দুর্গম গিরি,
সময় অসময়ে তুমি হও সুদূর নীলাকাশ,
অতিথি পাখির মতো করো বিচরণ যত্রতত্র,
আমি শুধু অবুঝের ন্যায় তোমার
মুখের দিকে তাকিয়ে থাকি।
তুমি কখনো আমার চোখে রাখোনা চোখ
এমনি ভাবে চেয়ে থাকো
যেন অজানা অচেনা লোক,
অথচ আমি...

দহনের উম্মাদনা - জেবু নজরুল ইসলাম

দহনের উম্মাদনা - জেবু নজরুল ইসলাম

তোমার হাতের একটি শীতল ছোঁয়া পেতে
তীর্থের কাকের মতো বসে আছি উম্মুখ হয়ে,
ঝুম বৃষ্টি বা সন্ধ্যার এক পশলা বৃষ্টিপাত
যেমন শীতল করে তাপ-দগ্ধ পরিবেশ কিংবা
প্রকৃতির শ্বাসরুদ্ধকর উত্তাপ,
তেমনি তোমার মৃণাল হাতের একটি স্পর্শ
থামিয়ে দিতে পারে আমার দহনের উম্মাদনা,
প্রশান্তিতে ভরে দিতে পারে বুকের করিডোর নিমিষেই।
বৈশাখী তীব্র দহনে বিধ্বস্ত মন
তোমাকে খোঁজে প্রকৃতির মঝে সারাক্ষণ।
রৌদ্রোজ্জ্বল অমল প্রত্যূষে প্রউদ্ভিন্ন বনোফুলের
মৌ মৌ সুরভী হৃদয় অধর যখন ছুঁয়ে ছুঁয়ে যায়,
তোমাকে কাছে পেতে খুব ইচেছে করে,
প্রভাতের নৈসর্গিক সৌন্দর্যে বিমোহিত মন
কখনো হারিয়ে যায়...

সৌরভে বিমুগ্ধ - জেবু নজরুল ইসলাম

সৌরভে বিমুগ্ধ - জেবু নজরুল ইসলাম

আমাকে শুধু তুমিই করে রেখেছো উ™£ান্ত
না হয় কেনো নিশাচর প্রাণীর মতো
তোমার দিকে তাকিয়ে থাকি
স্পন্দনহীন চোখে সারারাত্রি,
কেনো তোমাকে ছাড়া ভাবতে পারিনা অন্য কিছু।

তোমার স্পর্শ পাই
ভোরের নির্মল বাতাস ছোঁয়ানো সোনালি আলোতে,
দেখি তোমায় সন্ধ্যার অলো-আঁধারের মিলন খেলায়।
তোমার সুবর্ণ আলোকচ্ছটার উজ্জ্বল শুভ্র রশ্মি
উপভোগ করি প্রতিনিয়ত যামিনীর অন্ধকারে,
ধীরে ধীরে বিলীন হই তোমাতে সম্পূর্ণরূপে,
মিশে যাই তোমার স্নিগ্ধ জ্যোতির গভীরে।

হতে চাই তোমার সৌরভে বিমুগ্ধ
তোমাকে রাখতে দুবাহুর আলিঙ্গনে
নিশ্চুপ বসে থাকি
রাত জাগা পাখির ন্যায় নিশীথে।
আষাঢ়ের...

আকাশের বুক চিরে - জেবু নজরুল ইসলাম

আকাশের বুক চিরে - জেবু নজরুল ইসলাম

আমার তৃষিত বুকে
তোমার হৃদয়ের উষ্ণ স্পর্শ যখন পাই,
সুখের কোমল আবীরে দ্রবীভূত হই আমি,
থাকি শিথিল নীরব, নিস্তব্ধ নিথর,
আঁখিদুটি হয় নিভু নিভু প্রদীপের মতো
হঠাৎ প্রচন্ড ঝড় উঠে শিরায় শিরায়,
ইচ্ছে করে
সুনামির ন্যায় সবকিছু গুঁড়িয়ে দিতে।
বুকের মাঝখানে তোমার দেহের উষ্ণতায়
উঠে সমুদ্রের উথাল-পাতাল ঢেউ
অনুভব করি শিহরিত কম্পন,
তোমার মৃণাল আঙ্গুলের ডগা
যখন আমায় ছুঁয়ে ছূঁয়ে যায়,
শঙ্খ চিলের মতো স্বপ্নিল চেতনার গভীরে আমি
 শুধু সুখের ঠিকানা খুঁজি।
মেঘের আড়াল থেকে বের হওয়া সূর্য যেমন
এনে দেয় প্রশান্তি মনে,
তোমার অধরের এক চিলতে তৃপ্তির হাসি
আমায় দেয় পলকে আনন্দের...

পূজারী - জেবু নজরুল ইসলাম

পূজারী - জেবু নজরুল ইসলাম

তোমার সৌন্দর্যের নিসর্গে
আমি সুন্দরের এক অযাচিত পূজারী,
শুভ্র কোমলতায় বিমুগ্ধ বিহ্বল,
তোমার বুকের ঝিনুকে রক্ষিত হৃদয়
জানিনা কখন আমায় ছুঁয়েছে
মনের অলখিতে এসে।
তোমায় নিয়ে অনুভূতির সুবর্ণ দিগন্তে
ভেসে যাই অনিবার,
শরতের আকাশের মতো
ঐ অভিরাম মুখ, যেন চেয়ে আছে নির্লিপ্ত
বিকশিত কুমুদ।
পাখীর নীড়ের প্রতিম কুঞ্চিত কুন্তল
খেলে ঢেউ অবিরাম উথাল পাথাল,
মায়া ভরা দুটিচোখে স্নিগ্ধ মাধুরী
করে দেয় উতলা প্রকৃতির মতো।
তোমার শ্বেতপদ্ম মদির নয়ন
ভীষণ নীরব, বিষণœ ব্যাকুল,
দুটিচেখে আছে প্রচন্ড মিনতি
আহা! সেকি এত আকুলতা
আঁখির গোপন গভীরে,
কার জন্য তুমি এতো অধীর
...

দুগ্ধশুভ্রচোখে - জেবু নজরুল ইসলাম

দুগ্ধশুভ্রচোখে - জেবু নজরুল ইসলাম

কি এমন মায়া কি এমন মমতা
সুপ্রসন্ন দুটিআঁখির গোপন গভীরে
লুকিয়ে রেখেছো তুমি,
মুগ্ধতায় আবৃত থাকে অন্তর
গোধুলির আবীরের মতো,
স্বপ্নের প্রিয়ার ন্যায় এক প্রচন্ড আকর্ষণ
ঐ দুগ্ধশুভ্রচোখে।
নিশ্চল নিশ্চুপ ঊর্ধ্ব গগনে চেয়ে আছে
স্থির দুটিআঁখি,
উদাস উন্মনা মন
মুক্ত বিহঙ্গের মতো ভেসে চলেছে
নির্জন অসীমে একটু ভালবাসা পেতে।
একাকী বিষণœ মনের নিঃসঙ্গতা
আর মনের আকুতি মেঘহীন
নীলাকাশের মতো স্পষ্ট চোখের মণিতে।
মুখখানা মনে হয় বিকশিত মৃদূল গোলাপ
পলাশ ছুঁয়েছে যেন তৃষিত অধর,
কোমল মাধুরী প্রচ্ছন্ন চিবুক
মন চায় তোমার সবুজে
মিশে হই একাকার।